নিজেদের দোষ ঢাকতে মরিয়া সরকার : খন্দকার মোশারফ

নিজেদের দোষ ঢাকতে মরিয়া সরকার : খন্দকার মোশারফ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বর্তমান সরকার নিজেদের দোষ ধামাচাপা দিতে অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে। সোমবার বিকেলে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক র‌্যালির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সংসদে জিয়াউর রহমানকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে খন্দকার মোশারফ বলেন, ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান নাকি অবৈধ রাষ্ট্রপতি ছিলেন, কিন্তু ১৯৭৮ সালের জুন মাসে সাধারণ নির্বাচনের মাধ্যমে এদেশের সকল জনগণ ভোট দিয়ে জিয়াউর রহমানকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত করেছিলেন। আওয়ামী লীগের মতো ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন, ২৯ তারিখ রাতে করে নয়, জিয়াউর রহমান এদেশের জনগণের ভোটের নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি ছিলেন।’

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, ‘যারা শহীদ জিয়াউর রহমানকে অবৈধ বলেন তাদের মনে দুর্বলতা রয়েছে। এই সরকার অনির্বাচিত। তাই নিজেদের দোষ অন্যের ওপরে চাপানোর চেষ্টা করছে। তাদের নিজেদের দোষ অন্যের উপর চাপাতে চায়- এই কাজটা আওয়ামী লীগ সবসময়ই করে। বাকশাল করে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিল। ২৯ ডিসেম্বর রাতে আবারো তারা গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। অন্যদিকে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আওয়ামী লীগের রেকর্ড হচ্ছে গণতন্ত্রকে হত্যা করা। বিএনপির রেকর্ড হচ্ছে গণতন্ত্রকে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা ‘

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘আজকে আমরা যখন মহিলা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছি তখন গণতন্ত্রের মাতা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া একটি মিথ্যা মামলায় অন্যায়ভাবে কারাগারে বন্দী। এই ধরনের মামলায় যদি কেউ সাজাপ্রাপ্ত হয়ে থাকে হাইকোর্ট থেকে সাত দিনের মধ্যে তিনি জামিনে মুক্তি লাভ করে থাকেন; কিন্তু খালেদা জিয়া আজকে দেড় বছরের উপরে কারাগারে নির্যাতিত হচ্ছেন। তাই আজকে মহিলা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সকল নেতাকর্মীদের প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে হবে, দেশে যদি গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হয় গণতন্ত্রের মাতা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here