বাংলাদেশের ভিসা পেয়েছেন সিডন্স

জেমি সিডন্স – ফাইল ছবি

বাংলাদেশে আসার ভিসা পেয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার ও টাইগার দলের সাবেক প্রধান কোচ জেমি সিডন্স। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বিষয়টি নিজেই নিশ্চিত করেছেন সিডন্স।

এবার ব্যাটিং কোচ হিসেবে বাংলাদেশে আসছেন সিডন্স। জাতীয় দল ছাড়াও পাইপলাইনে থাকা ব্যাটারদের নিয়ে কাজ করবেন তিনি।

১ মিনিট ৫৯ সেকেন্ডের এক ভিডিওতে সিডন্স বলেন, ‘বাংলাদেশের ভিসা পেয়ে গেছি আমি। আমার পরবর্তী কোচিং অধ্যায় হবে সেখানে। আশা করছি দুই বছর কাজ করবো। অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য ফিরবো অস্ট্রেলিয়ায়। জাতীয় ও জুনিয়র ডেভেলপমেন্ট দলে থাকা বাংলাদেশের তরুণ প্রতিভাবান ব্যাটারদের সাথে কাজ করতে মুখিয়ে আছি। জুনিয়র ক্রিকেটারদের খেলার মান বাড়াতে সাহায্য করতে ভালোবাসি আমি।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশে আসার জন্য এই মাসের শেষদিকে টিকিট করবো। আশা করছি ফেব্রুয়ারির ১ তারিখ থেকেই কাজ শুরু করতে পারবো। বাংলাদেশে আগেও কাজ করেছি। তখন দারুণ সময় কেটেছে। এবারো ভালো হবে আশা করছি।’

গেল বছর ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে এবং এ মাসের শুরুতে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে দুর্দান্ত এক জয় পায় বাংলাদেশ। ওইসব জয়ের কথা মনে করিয়ে সিডন্স বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কিছু ভালো জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। বিশেষ করে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে। এছাড়া সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হলো, টেস্টে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাটিতে পাওয়া জয়টি। প্রথম ম্যাচে তারা সবকিছুই ভালো করেছে। ব্যাটিং দুর্দান্ত ছিল, বোলিংয়েও ভালো করেছে। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে আবার সব উলটে গেলো। আমি জানি না কেন এমন হয়েছে। তবে এ বিষয়টাই হয়, কিছুটা অধারাবাহিক। আশা করি, সেদিকে এ বিষয়ে সাহায্য করতে পারবো।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি জাতীয় দলের ব্যাটারদের সাথে কাজ করবো, পাশাপাশি তরুণ ব্যাটারদের নিয়েও কাজ করবো। আমি এখনও শতভাগ নিশ্চিত নই, কাদের নিয়ে কাজ করবো। তবে এটি নিশ্চিত প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের নিয়ে কাজ করবো।’

২০০৭ সালের অক্টোবরে বাংলাদেশের প্রধান কোচ হন ৫৭ বছর বয়সী সিডন্স। ২০১১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর চুক্তি শেষ হবার পর দায়িত্ব ছাড়েন তিনি। ঘরের মাঠে ওই ওয়ানডে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হয়েছিল বাংলাদেশ।

অস্ট্রেলিয়ার মাত্র একটি ওয়ানডে খেলেছেন ডান-হাতি ব্যাটার সিডন্স। ৩২ রান করেন তিনি।

এছাড়া ১৬০টি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১১ হাজার ৫৮৭ রান ও ৭০টি লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ১ হাজার ৭৫৫ রান করেন সিডন্স। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৩৫টি সেঞ্চুরি ও ৫৩টি হাফ-সেঞ্চুরি করেন সিডন্স।

সূত্র : বাসস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here