কঠোর লকডাউন উপেক্ষা করে আওয়ামী লীগ নেতার ঈদ পুনর্মিলনী!

গাজীপুর

ঢাকা ট্রিবিউন

শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে টঙ্গীর দত্তপাড়া এলাকার নিজ বাসায় প্যান্ডেল টানিয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের নিয়ে তিনি এ ভোজের আয়োজন করেন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে সরকারঘোষিত কঠোর লকডাউনের বিধি-নিষেধ অমান্য করে নেতাকর্মীদের নিয়ে ঈদ পুনর্মিলনীর অভিযোগ উঠেছে টঙ্গীর আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল হাসান দিপুর বিরুদ্ধে। তিনি গাজীপুর মহানগরের ৪৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য সচিব। শনিবার (২৪ জুলাই) দুপুরে টঙ্গীর দত্তপাড়া এলাকার নিজ বাসায় প্যান্ডেল টানিয়ে বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের নিয়ে তিনি এ ভোজের আয়োজন করেন। ওই নেতার এ আয়োজনের ভিডিও স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন বাবু তার ফেসবুক আইডিতে লাইভ প্রচার করেন।

লাইভ ভিডিওতে ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হোসেন বাবু বলেন, “গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের নির্দেশে ৪৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য সচিব কামরুল হাসান দিপু ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে তার বাসায় ঈদ পরবর্তী মিলনমেলা এবং খাওয়া-দাওয়ার আয়োজন করেছেন।”

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ৪৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফারুক আহমেদ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক জাকির হাসান খোকন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক ইদ্রীস আলী জুয়েলসহ বিভিন্ন ইউনিটের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

স্থানীয়রা জানান, দুপুর ১টার পর থেকেই বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে নেতাকর্মীরা ওই নেতার বাসায় এসে উপস্থিত হয়। শুরু হয় দুপুরের খাওয়া-দাওয়া।

ঈদ পুনর্মিলনীর আয়োজক আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল হাসান দিপু ওই লাইভ ভিডিওতে বলেন, “আমি যার আদর্শে এবং যার কর্মচাঞ্চল্যতায় আমি অনুপ্রাণিত হই সেই প্রিয় নেতা গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের নির্দেশে ঈদ পুনর্মিলনীর আয়োজন করেছি। অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে দীর্ঘ পথচলায় আমি একটা জিনিস শিখেছি। তা হলো মানুষকে ভালোবাসো, মানুষের পাশে থাকো, মানুষকে সহযোগিতা করো। আজকে তারই ধারাবাহিকতায় ঈদ পরবর্তী ৪৯নং ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের নির্দেশে একত্রিত হয়েছি। আমরা সবাই মিলে একসঙ্গে দুপুরের আহার করেছি।”

লকডাউন বিধি-নিষেধ অমান্য করে ঈদ পূণর্মিলনীর আয়োজন করার বিষয়ে মুঠোফোনে জানতে চাইলে কামরুল হাসান দিপু এ আয়োজনের কথা প্রথমে অস্বীকার করেন, পরে বলেন, “যারা আমার বাসায় এসেছে তারা আমার আত্মীয়স্বজন। পরে তার অনুষ্ঠানের বিষয়ে ফেসবুকে লাইভ ভিডিওর কথা জানালে বলেন, “নেতাকর্মীরা এসেছিলো  কিন্তু বৃষ্টির কারণে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছি।”

টঙ্গী পূর্ব থানা এলাকায় দায়িত্বরত গাজীপুর জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাফিজ এলাহির সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে বিকেলে সাংবাদিকদের বলেন, “আমি চেকপোস্টের ডিউটিতে আছি। ঘটনাস্থলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেবো।”

টঙ্গী পূর্ব থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনির হোসেন জানান, “আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পাইনি। তবে সেখানে প্যান্ডেল এবং কিছু চেয়ার টেবিল পেয়েছি। ধারণা করা হচ্ছে, পুলিশ আসার পূর্বেই খবর পেয়ে আয়োজকরা তাড়াহুড়ো করে অনুষ্ঠান শেষ করেছেন।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here