রামেক হাসপাতালে আরো ১৪ জনের মৃত্যু

Daily Nayadiganta

রামেক হাসপাতালে আরো ১৪ জনের মৃত্যু – ছবি – সংগৃহীত

করোনাভাইরাস ও করোনা উপসর্গ নিয়ে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৮টার মধ্যে বিভিন্ন সময়ে তারা মারা গেছেন।

এরআগের ২৪ ঘণ্টায় ১১ জনের মৃত্যু হয়েছিল রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে। ফলে একদিনের ব্যবধানে আবার মৃত্যু বাড়ল রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে। রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটের বিভিন্ন ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্ত হয়ে ১০ জন ও উপসর্গে চারজন মারা গেছেন। এদের মধ্যে আট জন পুরুষ ও ছয়জন নারী।’

রামেক হাসপাতাল পরিচালক বলেন, ‘মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর আটজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন, নাটোরের একজন, পাবনার তিনজন ও চুয়াডাঙ্গার একজন ছিলেন।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজশাহীর সাতজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন, নাটোরের একজন ও পাবনার একজন মারা গেছেন। আর উপসর্গ নিয়ে রাজশাহীর একজন, পাবনার দুইজন ও চুয়াডাঙ্গার একজন মারা গেছেন। মৃতদের পরিবারকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে লাশ দাফন করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।’

হাসপাতালে রোগী ভর্তি ও সংক্রমণের বিষয়ে রামেক হাসপাতাল পরিচালক বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৫০ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫০ জন। রামেক হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৭৮ জন ও উপসর্গ নিয়ে ২৩৮ জন ভর্তি রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালে ৫১৩টি শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি ছিলেন ৪১৬ জন।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালের পিসিআর মেশিনে ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষায় ৮৮ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। আর রাজশাহী মেডিকেল কলেজের পিসিআর মেশিনে ৪৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৩৫ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। দুই ল্যাবে মোট ৬৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ২২৩ জনের করোনা পজিটিভ ফল আসে।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বলেন, রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চলতি জুলাইয়ের প্রথম ২৫ দিনে রোববার (২৫ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত মোট ৪৩৬ জনের মৃত্যু হলো। এছাড়া গত জুনে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৪০৫ জন রোগী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here